দেখে নিন আপনার পিসির জন্য কোনটি নিবেন? 32 না 64 বিট

1। 64 বিট হলো 32 বিটের তুলনায় অত্যধিক ওয়াইড এবং কার্যকরী। 32 বিট অপারেটিং সিস্টেম দিয়ে আপনি সব্বোচ্চ 4 গিগাবাইট র‌্যাম হ্যান্ডেল করাতে পারবেন। তবে কোন কোন সময় তিন, সাড়ে তিন গিগার বেশি র‌্যাম হ্যান্ডেল করানো যায় না। আর 64 বিট দিয়ে 128 গিগাবাইট র‌্যাম হ্যান্ডেল করানো যাবে যা এখনো প্রায় কল্পনার বাহিরে।

2। যেহেতু 32 বিট অপারেটিং সিস্টেমের ক্ষমতা 4 গিগাবাইটের ভেতরে সীমাবদ্ধ তাই এর পরিচালন ক্ষমতা ও অনেক কম। তাই আপনার পিসি যতই উন্নত কনফিগারেশনের হোক না কেন, বড় কোন প্রোগ্রাম যেমন ফটোশপ ও ভিডিও এডিটর এগুলো ভালভাবে কাজ করবে না এবং যখন তখন ক্রাশ হয়ে ও যেতে পারে।

3। 64 বিট অপারেটিং সিস্টেম 32 বিটের চেয়ে অধিক সুরক্ষিত এবং এতে কোন ড্রাইভার ইন্সটল করতে হলে মাইক্রোসফট এর দেয়া ডিজিটাল সাইন ব্যবহার করতে হয়। যদি ওই ড্রাইভারে ডিজিটাল সাইন না থাকে তাহলে ইন্সটল করার সময় ওয়ার্নিং দেখবে।

4। অধিক ওয়াইড হওয়ার কারণে 64 বিট অপারেটিং সিস্টেম ইচ্ছেমত বড় মনিটরে হাই রেজুলেশনে ব্যবহার করতে পারবেন কিন্তু 32 বিটে রেজুলেশন যতই বেশি হবে স্পীড তত কম হবে।

5। 64 বিট অত্যধিক ওয়াইড এজন্য এই অপারেটিং সিস্টেম কিংবা এর প্রোগ্রামগুলো খুব ফাস্ট এবং দ্রুততার সাথে কাজ করে। যেহেতু প্রতিটি প্রোগ্রাম ইচ্ছেমত সিপিইউ ও র‌্যাম ব্যবহার করার সুযোগ পায় তাই বড় ধরণের কোন কাজ করলেও প্রোগ্রাম ক্রাশ হবার সম্ভাবনা অনেক কম।

6। প্রতিটি সফটওয়্যার রান করাতে হলে দুটি জিনিষের প্রয়োজন হয়। প্রসেসর ও অপারেটিং সিস্টেম। প্রসেসর হলো মেশিন আর অপারেটিং সিস্টেম হল সেই মেশিনের অপারেটর। তাই এই মেশিন ও অপারেটর এর ক্ষমতার চেয়ে বড় কিছু তারা করতে পারবে না। তাই আপনি 64 বিট সফটওয়্যার 32 বিটের অপারেটিং সিস্টেমে ব্যবহার করতে পারবেন না।


আপনার র‌্যাম 8 গিগাবাইট এবং অপারেটিং সিস্টেম যদি 32 বিট হয় তাহলে আপনার 4 গিগাবাইটের বেশি র‌্যাম নিঃসন্দেহে অকার্যকর অবস্থায় পড়ে আছে। আপনি যত বড় এবং যত বেশি সফটওয়্যার একসাথে রান করান না কেন কোনভাইবেই বাকি 4 গিগাবাইট কার্যকর করতে পারবেন না 64 বিট ব্যবহার ছাড়া।

64 বিটের (মানে বড় ধরণের) কোন প্রোগ্রাম 32 বিট (সঙ্কীর্ণ ) অপারেটিং সিস্টেমে রান করাতে পারবেন না তাই Adobe Creative Suite CS6 Master Collection বা এ ধরণের প্রোগ্রামগুলো ব্যবহার করার ইচ্ছা আপনাকে বাতিল করতে হবে। কিন্তু 32 বিট প্রোগ্রামগুলো 64 বিটে ইচ্ছেমত রান করাতে পারবেন কোন সমস্যা ছাড়া। তাই বর্তমান সময়ের অধিকাংশ প্রোগ্রামগুলো 32 বিটের।

64 বিট অপারেটিং সিস্টেমের জন্য সর্বনিম্ন 1 গিগা মেমরি এবং 64 বিট প্রসেসর থাকতে হয় তাই 32 বিট প্রসেসর কিংবা 1 গিগাবাইট এর কম র‌্যম হলে 64 বিট ব্যবহার করতে পারবেন না।

আপনার কম্পিউটারটি যদি নেটবুক হয় তাহলে 32 বিটই ব্যবহার করুন। কারণ নেটবুকের মনিটর ছোট এবং এর হার্ডওয়্যারগুলোর ক্ষমতা অত্যন্ত কম। তাই 64 বিট ব্যবহার করতে গিয়ে বিপাকে পড়তে পারেন।

প্রসেসর যদি 64 বিট হয় তাহলে 64 বিট অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করুন। কারণ যথেষ্ট ক্ষমতা আছে কিন্তু কেন কাজে লাগাতে যাবেন না।

আজ এখানেই। ভালো-মন্দ কমেন্ট অবশ্যই করবেন। আল্লাহ হাফেজ।

Leave a Reply


SEO Powered By SEOPressor